এক নবজাতক বিক্রি করতে গিয়ে নারী আটক

এক নবজাতক বিক্রি করতে গিয়ে স্থানীয়দের হাতে সুফিয়া বেগম (৫৭) নামের এক নারী আটক হয়েছেন। সুফিয়া জানিয়েছে, বাচ্চাটি সিলেটের গোলাপগঞ্জের একটি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে নিয়ে এসেছেন। তবে পুলিশ সেখান থেকে বাচ্চা চুরির কোনো খবর পায়নি।
বাদাম বাগিচা এলাকায় গতকাল মঙ্গলবার রাতে সন্দেহজনকভাবে বাচ্চা নিয়ে ঘোরাঘুরি করার সময় স্থানীয়রা সুফিয়াকে আটক করে। তিনি হবিগঞ্জের মাধবপুরের বশির আলীর স্ত্রী।
স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গতকাল রাতে সিলেট নগরের বাদাম বাগিচা এলাকায় ওই নারী আনুমানিক চার দিনের বাচ্চা নিয়ে ঘোরাঘুরি করছিল। এ সময় স্থানীয় কয়েকজনের কাছে বিষয়টি সন্দেহ হলে ওই নারীর পরিচয় এবং বাচ্চাটি কার জানতে চান। এ সময় ওই নারী অসংলগ্ন কথাবার্তা বলতে থাকলে সিলেট সিটি করপোরেশনের ৬ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর ফরহাদ চৌধুরী শামীমের কার্যালয়ে নিয়ে যান।
কাউন্সিলর ফরহাদ চৌধুরী শামীম প্রথম আলোকে বলেন, ‘স্থানীয়দের উপস্থিতিতে ওই নারীকে জিজ্ঞাসাবাদে অসংলগ্ন কথাবার্তা বলতে থাকে। পরে আমি ওই নারীর কাছ থেকে বাচ্চাটি নিয়ে খাদিজা বেগম নামের আরেক মহিলার কাছে দিই। তিনি ওই বাচ্চাটির দেখভাল করছেন। এর পাশাপাশি আজ বুধবার সকালে ওই মহিলার তত্ত্বাবধানেই বাচ্চাটিকে সিলেটের একটি বেসরকারি হাসপাতালে স্বাস্থ্য পরীক্ষা করানো হয়েছে।’
ফরহাদ চৌধুরী জানান, বিষয়টি সিলেটের বিমানবন্দর থানা-পুলিশকে লিখিতভাবে জানানো হয়েছে। ওই নারী বলছেন বাচ্চাটি সিলেটের গোলাপগঞ্জের একটি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে নিয়ে এসেছেন। বাচ্চাটিকে সিলেটে বিক্রির চেষ্টা করছিলেন। বর্তমানে ওই নারীকে তাঁর কার্যালয়েই জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ।
সিলেট বিমানবন্দর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) জগৎজ্যোতি প্রথম আলোকে বলেন, ওই নারী বলেছে বাচ্চাটিকে গোলাপগঞ্জের একটি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সেবিকা তাঁকে দিয়েছেন। আমরা তাঁর দেওয়া তথ্য অনুযায়ী খবর নিচ্ছি। এ ব্যাপারে ওই নারীকে আটক করে আমরা আদালতের কাছে নির্দেশনা চাইব। আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে।
সিলেটের গোলাপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিজানুর রহমান জানান, গোলাপগঞ্জে বাচ্চা হারিয়েছে কিংবা চুরি হয়েছে এ ধরনের কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি। তারপরও আমরা বিষয়টি খবর নিচ্ছি।

Related posts