খালেদা জিয়ার সু-চিকিৎসা করা ও মুক্তির দাবীতে চাঁদপুর জেলা বিএনপির বিক্ষোভ সমাবেশ

স্টাফ রিপোর্টার : বিএনপির চেয়ারপার্সন, তিন বারের সাবেক সফল প্রধানমন্ত্রী আপোষহীন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার সু-চিকিৎসা করা ও মুক্তির দাবীতে চাঁদপুর জেলা বিএনপির বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল রোববার জেলা বিএনপি কার্যালয়ে বিক্ষোভ সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন চাঁদপুর জেলা বিএনপির যুগ্ম-আহ্বায়ক অ্যাড. সেলিম উল্যাহ সেলিম।

চাঁদপুর জেলা বিএনপির যুগ্ম-আহ্বায়ক মুনির চৌধুরীর পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন যুগ্ম-আহ্বায়ক মাহাবুব আনোয়ার বাবলু, দেওয়ান মো. সফিকুজ্জামান, আক্তার হোসেন মাঝি, চাঁদপুর সদর উপজেলা বিএনপির সভাপতি শাহাজালাল মিশন, সাধারণ সম্পাদ অ্যাড. জাহাঙ্গীর হোসেন খান, জেলা যুবদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আফজাল হোসেন, জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম চাঁদপুর জেলা শাখার সভাপতি অ্যাড. কামাল উদ্দিন আহমেদ, জেলা শ্রমিক দলের সভাপতি নজরুল ইসলাম বাদল, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক হযরত আলী, জেলা যুবদলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মানিকুর রহমান মানিক, সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. নুরুল আমিন খান আকাশ, সাংগঠনিক সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ বাহার, জেলা কৃষক দলের সভাপতি এনায়েত উল্যাহ খোকন, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সাংগঠনিক সম্পাদক সলেমান ঢালী, জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ইসমাইল হোসেন পাটওযারী প্রমুখ।

বাক্তারা বলেন, শেখ হাসিনা বলেছেন খালেদা জিয়া নাকি রাজার হাওলাতে আছে। আপনারা বলেন জেলখানায় নাকি কেউ রাজার হাওলাতে থাকে। আগামী ১২ তারিখে আমাদের নেত্রীকে মুক্ত দেখতে চাই, তা না হলে আমরা রাজপথে নেমে কঠোর আন্দোলনের মাধ্যমে মুক্ত করে ছাড়বো। আন্দোলন শুরু হয়ে গেছে। একযোগে আমাদের রাজপথে নামতে হবে।

তারা আরো বলেন, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কাউয়া কাদের বলেন বিএনপি নাকি ২ মিনিটও রাজপথে দাঁড়াতে পারবেনা। এ বিক্ষোভ সমাবেশ থেকে হুশিয়ারি দিয়ে বলতে চাই আপনারা পুলিশ বাদ দিয়ে রাজপথে আসেন দেখবো কে কতক্ষণ দাঁড়াতে পাড়ে। যতবেশি নেতা-কর্মীর সমাগম হবে পুলিশ তত তাড়াতাড়ি সড়ে পড়বে। তাই সকল নেতা-কর্মীকে রাজপথে নামে পড়তে হবে। আর ঘরে বসে থাকা যাবে না।

বক্তারা আরো বলেন, এ সরকার কোন আইন মানে না। যদি আইন মানতো ও শ্রদ্ধা থাকতো তাহলে আমাদের নেত্রী জেলখানায় থাকতো না। একজন বয়স্ক নারী হিসেবে আমাদের নেত্রী জামিন পাওয়া তার অধিকার। তার অধিকার থেকে তাকে বঞ্চিত করা হচ্ছে। সকল নেতা-কর্মীদের লক্ষ রাখতে হবে আমাদের আন্দোলনে যাতে অন্যদলের লোকজন প্রবেশ করতে না পারে। স্বাধীন দেশে খালেদা জিয়ার সু-চিকিৎসার জন্য আন্দোলন করতে হচ্ছে। এটি জাতির জন্য দুরভাগ্য। সকলের কর্মসূচীতে সকলে অংশগ্রহণ করবেন।

Related posts