বাবুরহাট উচ্চ বিদ্যালয়ের দশ যুগপূর্তি ও ২য় পুনর্মিলনী উৎসবের সমাপনী অনুষ্ঠান

একটি প্রতিষ্ঠান ১২০ বছর, এটি অনন্য ঘটনা। বাংলাদেশে অনেক শতবর্ষী স্কুল এবং কলেজ রয়েছে। কিন্তু এমন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুবই কম এবং নগণ্য। আমাদের এলাকায় এমন একটি প্রতিষ্ঠান রয়েছে যেটি এ এলাকার প্রধানতম প্রতিষ্ঠান, যা ১২০ বছর ধরে এ এলাকায় আলো ছড়িয়ে বেড়াচ্ছে। এ প্রতিষ্ঠানের অনেক শিক্ষার্থী দেশের এবং বিদেশে সুনামের সাথে কাজ করে চলেছে, সেটি এ স্কুলের জন্যে যেমন গর্বের, তেমন আমাদের এলাকার জন্যেও গর্বের’। কথাগুলো বলেছেন শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দীপু মনি এমপি।

তিনি গতকাল শনিবার চাঁদপুর জেলার ২য় প্রাচীনতম বিদ্যাপীঠ বাবুরহাট উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের দশ যুগ পূর্তি ও ২য় পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন। তিনি আরও বলেন, এখন শিক্ষার্থীদের চেয়ে বেশি প্রতিযোগিতা করেন তাদের বাবা-মায়েরা। শিক্ষার্থীদের জিপিএ-৫-এর যাঁতাকলে পিষ্ট করা হচ্ছে। তিনি বলেন, জিপিএ-৫ পাওয়াই আমাদের একমাত্র উদ্দেশ্য হতে পারে না। জীবনের উদ্দেশ্য জিপি-৫ হতে পারে না। জীবনের উদ্দেশ্য হবে, আমি ভালো মানুষ হবো এবং মানুষের মতো মানুষ হবো। আমি যেখানে থাকবো, যাই করবো, তা আমি সততা ও নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করবো। তিনি সকলকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানান। তিনি এ অনুষ্ঠানের সফলতা কামনা এবং এ এলাকার সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

বিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থী ও অনুষ্ঠানের উদ্বোধক হিসেবে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটেয়ারী। তিনি বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমাদের স্বপ্ন দেখিয়েছেন উন্নত রাষ্ট্র গড়ার। তা এখন আর স্বপ্ন নয়, অনেক কিছুই বাস্তবায়ন হয়েছে এবং হচ্ছে। এ এলাকায়ও অনেক পরিবর্তন ঘটেছে, যুগের সাথে তাল মিলিয়ে উন্নয়ন হয়েছে। তবে উন্নয়নের সাথে আমাদেরকে বেঁচে থাকতে হলে কিছু খারাপ দিক থেকে সতর্ক থাকতে হবে। আমাদের সন্তান, পরিবার ও সমাজকে রক্ষা করতে হবে। তিনি বলেন, মাদকের মরণ নেশা ছড়িয়ে পড়েছে দেশব্যাপী। এই মাদক থেকে নিজেকে মুক্ত রাখতে হবে এবং অপরকেও মুক্ত রাখার জন্যে শপথ নিতে হবে। তিনি শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে জঙ্গিবাদ সম্পর্কে বলেন, জঙ্গিবাদ একটি ভুল মতবাদ। যা শুধু সমাজকে নয়, পুরো দেশকে ধ্বংস করতে সক্ষম। জঙ্গিবাদ এখন অনেকটা নিয়ন্ত্রণে। আমাদেরকে এ থেকে পুরোপুরি বেরিয়ে আসতে হবে।

তিনি উপস্থিত সকলের উদ্দেশ্যে বলেন, মাদকের মতোই আরেকটি ভয়াবহ নেশা হচ্ছে সোস্যাল মিডিয়া তথা ফেসবুক। যা মাদকের চেয়েও বেশি সমাজ এবং আমাদের পরিবারকে গ্রাস করেছে। ফেসবুক নামক সোস্যাল মিডিয়া আমাদেরকে আমাদের পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন করে দিচ্ছে। আমরা সোস্যাল মিডিয়ায় এমনভাবে আসক্ত হয়ে পড়ছি যে বাবা, মা, ছেলে-মেয়ে পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ছি। ফলে সন্তান কী করছে কোনো খবরই রাখছি না। এর আরেকটি ভয়াল গ্রাস হচ্ছে গুজব। এই গুজবের ভয়াবহ কয়েকটি ঘটনা আমরা কিছুদিন আগে দেখেছি। তিনি সকলের উদ্দেশ্যে বলেন, সোস্যাল মিডিয়া ফেসবুক যেমন ভালো কাজে ব্যবহার করা যায় তেমনি খারাপ কাজেও ব্যবহার করা যায়। তাই কোনো কিছু শেয়ার বা আপলোড করার আগে ভালোভাবে যাচাই করে নিবেন, তাহলে আপনি নিজেও বাঁচবেন এবং সমাজকেও বাঁচাতে পারবেন।

তিনি উপস্থিত সকলের উদ্দেশ্যে বলেন, আপনি যা বলবেন সন্তান তা হয়ত করবে না। কিন্তু আপনি নিজে যা করবেন আপনার সন্তান তাই শিখবে এবং করবে। কারণ, তারা অনুসরণ করে এবং শিখানো কিছু করে না। তিনি বলেন, স্কুলে, কলেজে, ভার্সিটিতে রেজাল্ট ভালো করলে সাফল্য আসে না। বরং সাফল্য আসে ভালো মানুষ হওয়ায়। সন্তানকে ভালো রেজাল্ট নয়, ভালো মানুষ হওয়ার শিক্ষা দিন। পৃথিবীতে যারা খ্যাতি অর্জন করেছেন তারা কেউই ভালো রেজাল্ট করতে পারেন নি এবং অনেকেই স্কুল বা কলেজের গ-ি পেরুতো পারেন নি। তাই আমরা এ থেকে শিক্ষা নিয়েও সন্তানদের ভালো মানুষ হওয়ার অনুপ্রেরণা দেবো। তিনি বলেন, আমরা যখন মোবাইলে আসক্তি হই, তখন কিন্তু আমাদের চিন্তা শক্তি বিকশিত হয় না বরং আমরা যখন একটি বই পড়ি তখন আমাদের মানসিক বিকাশ ঘটে। তাই সন্তানদের ক্লাসের বইয়ের পাশাপাশি অন্য বইও পড়তে দিন। বাইরের বিশ্ব সম্পর্কে তাকে জানতে দিন। তিনি অনুষ্ঠানের আয়োজক কমিটিকে কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ এবং এ বিদ্যালয়ের পাশে থাকার নিশ্চয়তা প্রকাশ করেন।

বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক মাসুদুর রহমান, প্রাক্তন শিক্ষার্থী সাংবাদিক রহিম বাদশা, সহকারী অধ্যাপক সবিতা বিশ্বাস ও তাপসি রাবেয়ার সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন প্রাক্তন শিক্ষার্থী বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক একেএম ফজলুল হক মিঞা, চাঁদপুর জেলা প্রশাসকের পক্ষে ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক আবদুল্লা আল মাহমুদ জামান, চাঁদপুর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পৌর মেয়র নাছির উদ্দিন আহমেদ, চাঁদপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু নঈম পাটওয়ারী দুলাল, নিক্কি এলয় গ্রুপের চেয়াম্যান মনোয়ার হোসেন ও চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি শহীদ পাটোয়ারী।

এছাড়াও অনুষ্ঠানে বিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষার্থী, আমন্ত্রিত অতিথি, শুভানুধ্যায়ী, শিক্ষক ও বর্তমান শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।

Related posts