শাহরাস্তিতে পিতাকে কুপিয়ে হত্যা করলো ছেলে \ আহত মাকে হাসপাতালে ভর্তি

শাহরাস্তি উপজেলার চিতোষী পশ্চিম ইউনিয়নের সেতি নারায়ণপুর গ্রামের বড় বাড়িতে নিজের সন্তানের হাতে খুন হয়েছেন বিএডিসির অবসরপ্রাপ্ত কর্মচারী ছেরাগ আলী (৭৫)।

গতকাল রোববার সন্ধ্যা ৭টায় বসত ঘরেই এ ঘটনাটি ঘটে। খবর পেয়ে শাহরাস্তি থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে আলামত সংগ্রহ করে।
ঘটনার বিবরণে জানা যায়, নিহত চেরাগ আলীর ৩ ছেলের মধ্যে ঘাতক আকবর আলী সবার বড়। বাড়ির লোকজন জানান, সে মানসিকভাবে অসুস্থ। ঘটনার সময় তার পিতার সাথে তর্ক করার এক পর্যায়ে ঘরে থাকা দা দিয়ে তার পিতাকে কুপিয়ে হত্যা করে। তার মা ফুলমতি ডাক-চিৎকার দিয়ে স্বামীকে বাঁচাতে এগিয়ে আসলে আকবর আলী তার মাকে মেরে আহত করে। বাড়ির লোকজন ছুটে আসলে আকবর আলী পালিয়ে যায়। চেরাগ আলী তার স্ত্রী ও বড় ছেলে আকবর আলীকে নিয়ে একত্রে বসবাস করে আসছিলেন। আকবর আলী পার্শ্ববর্তী জয়নগর এলাকায় বিয়ে করেন। তার স্ত্রী বর্তমানে বাবার বাড়িতে রয়েছেন। মেঝো ছেলে এমরান স্ত্রী-সন্তান নিয়ে আলাদা ঘরে বসবাস করছেন, ছোট ছেলে শোরসাকে কাজ করেন।

ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান জোবায়ের কবির বাহাদুর জানান, সংবাদ পেয়ে আমি ঘটনাস্থলে এসেছি। ঘাতক আকবর মানসিকভাবে ভারসাম্যহীন বলে শুনেছি, তবে আমি নিশ্চিত নই। শাহরাস্তি থানার ওসি শাহ আলম জানান, বাড়ির লোকজন থেকে জেনেছি ছেলেটি মানসিক ভারসাম্যহীন। তবে তদন্ত সাপেক্ষে সত্য জানা যাবে। বাবার সাথে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে এ ঘটনা ঘটে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

Related posts