মতলব-বাবুরহাট পেন্নাই সড়কে অটোরিক্সা-প্রাইভেটকার সংঘর্ষ ॥ গুরুতর আহত ৫

মতলব-বাবুরহাট পেন্নাই সড়কের পশ্চিম নাগদা মোড় এলাকায় গতকাল ২৪ জানুয়ারি শুক্রবার বেলা ১২টায় অটোরিক্সা (সিএনজি) প্রাইভেটকার মুখোমুখি সংঘর্ষে সিএনজির চালকসহ চার যাত্রী গুরুতর আহত হয়। এদের প্রত্যেকের অবস্থা আশঙ্কাজনক। পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের একটি দল ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ওইদিন উপজেলার নারায়ণপুর বাজার থেকে একটি যাত্রীবাহী অটোরিক্সা (সিএনজি, চাঁদপুর-থ-১১-২০৪৫) মতলবের উদ্দেশ্যে ছেড়ে পশ্চিম নাগদা এলাকায় পৌঁছলে বিপরীত দিক থেকে আসা প্রাইভেটকার (ঢাকা-মেট্টো-গ-২৭-৯৩১২)-এর সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে অটোরিক্সাটি ড্রাইভার ও যাত্রীসহ পাশের পুকুরে গিয়ে পড়ে। এতে চালক পূর্ব নাগদা গ্রামের মনির হোসেন (৫৫), যাত্রী নবকলস গ্রামের নূরুল ইসলাম (৫০), উপাদী গ্রামের নূরজাহান (৫৫), সাফায়েত (৬) ও মতলব উত্তর উপজেলার উত্তর ছেংগারচর গ্রামের তামান্না (৩২) গুরুতর আহত হন। স্থানীয় লোকজন দ্রুত চালক ও যাত্রীদের উদ্ধার করে মতলব দক্ষিণ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও নারায়ণপুর হাসপাতালে প্রেরণ করে।

আহত নূরজাহানের ভাগিনা ফারুক জানান, দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত আমার খালা ও তার নাতিকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। এদিকে মতলব দক্ষিণ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্মরত চিকিৎসক আহত চালকসহ অপর দুই যাত্রীকে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করেন।

ফায়ার সার্ভিস স্টেশন ইনচার্জ আসাদুজ্জামান মিয়া বলেন, দুর্ঘটনায় ছিটকে পড়া সিএনজির যাত্রী পুকুরে নিখোঁজ আছে শুনে আমরা ঘটনাস্থলে যাই এবং ওই পুকুরে তল্লাশি চালাই। পরে আহতদের পরিচয় পেয়ে কেউ পুকুরে নেই বলে নিশ্চিত হই। বিষয়টি উৎসুক জনতাকে আশ^স্ত করি।
মতলব দক্ষিণ থানার অফিসার ইনচার্জ স্বপন কুমার আইচ বলেন, দুর্ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ ফোর্স ঘটনাস্থলে যায়। দুর্ঘটনা কবলিত অটোরিক্সা ও মাইক্রোবাস উদ্ধার করে এবং স্থানীয় জনতাকে শান্ত করে।

Related posts