যথাযোগ্য মর্যাদায় একুশে ফেব্রুয়ারি উদ্‌যাপন করা হবে

শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস-২০২০ চাঁদপুর জেলায় যথাযোগ্য মর্যাদায় উদ্‌যাপনের লক্ষ্যে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে প্রস্তুতিমূলক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল ৪ ফেব্রুয়ারি মঙ্গলবার সকাল ১০টায় অনুষ্ঠিত সভায় সভাপ্রধানের বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক মোঃ মাজেদুর রহমান খান। তিনি বলেন, ভাষা শহীদদের প্রতি সম্মান জানিয়ে যথাযোগ্য মর্যাদায় একুশে ফেব্রুয়ারি উদ্‌যাপন করা হবে। একুশ উদ্‌যাপনে জাতির জনকের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে আমাদেরকে বিশেষ কর্মসূচি প্রণয়ন করতে হবে। যাতে ভবিষ্যৎ প্রজন্ম দেশ গঠনে বঙ্গবন্ধুর অবদানের কথা জানতে পারে। তারা বুঝতে পারে এ দেশের জন্যে, মানুষের জন্য, স্বাধীনতার জন্যে জাতির জনক কী কী করেছেন। কিভাবে বাংলা ভাষা আমাদের রাষ্ট্রভাষার স্বীকৃতি লাভ করেছে।

তিনি আরো বলেন, মুজিববর্ষের ক্ষণগণনা শুরু হয়েছে। আগামী ১৭ মার্চ এ মহান নেতার জন্মশতবার্ষিকী উদ্যাপিত হবে। বিপুল আনন্দ উৎসাহের মধ্য দিয়ে যাতে আমরা দিবসটি পালন করতে পারি সেদিকে লক্ষ্য রেখে আমাদেরকে কার্যক্রম গ্রহণ করতে হবে।

সভার শুরুতে বিগত সভার কার্যবিবরণী পাঠ করেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) এসএম জাকারিয়া। বক্তব্য রাখেন ডিডি এনএসআই মোঃ আজিজুল হক, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (পদোন্নতিপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার) মোঃ মিজানুর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু নঈম পাটওয়ারী দুলাল, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা এমএ ওয়াদুদ, স্বাধীনতা পদকপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা ডাঃ সৈয়দা বদরুন নাহার চৌধুরী, চাঁদপুর সাহিত্য একাডেমির মহাপরিচালক রোটাঃ কাজী শাহাদাত, পুরাণবাজার ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ রতন কুমার মজুমদার, চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক এএইচএম আহসান উল্লাহ, কার্যকরী সদস্য শহীদ পাটওয়ারী, বিশিষ্ট লেখক ডাঃ পীযূষ কান্তি বড়ুয়া, জেলা স্কাউটস কমিশনার অজয় কুমার ভৌমিক, জেলা হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডঃ রণজিত রায় চৌধুরী, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট জেলা শাখার সভাপতি তপন সরকার প্রমুখ। উপস্থিত ছিলেন জেলা সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ সাখাওয়াত উল্লাহ, চাঁদপুর আড়াইশ শয্যাবিশিষ্ট সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডাঃ মোঃ হাবিবউল করিম, চাঁদপুর পৌরসভার প্যানেল মেয়র ছিদ্দিকুর রহমান ঢালীসহ জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, উপজেলা পরিষদের নির্বাহী কর্মকর্তা ও বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

সভায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে আগামী ১৪ থেকে ২১ ফেব্রুয়ারি বিকেল ৩টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত ব্যাপক আয়োজনে বইমেলা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান আয়োজন করা হবে। এছাড়া কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার চত্বর, শপথ চত্বর, ইলিশ চত্বর, চিত্রলেখার মোড়, বাসস্ট্যান্ডসহ বিভিন্ন সড়ক বাংলা বর্ণমালা ও ফেস্টুন দ্বারা সজ্জিতকরণ, ২১ ফেব্রুয়ারি দিবসের প্রত্যুষে শহীদ দিবসের সাথে সঙ্গতিপূর্ণ সঙ্গীত পরিবেশন সহকারে শহরের প্রধান প্রধান সড়কে প্রভাতফেরী, সূর্যোদয়ের সাথে সাথে জেলার প্রতিষ্ঠানসমূহে সঠিক নিয়মে সঠিক মাপের জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা, ভাষা আন্দোলন ও বঙ্গবন্ধু শীর্ষক সেমিনার, শহরের গুরুত্বপূর্ণ রাস্তায় আল্পনা অাঁকা, ‘ভাষা আন্দোলন ও বঙ্গবন্ধু’ বিষয়ের উপর রচনা প্রতিযোগিতার আয়োজন করাসহ বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে।

Related posts