পিকআপ-সিএনজি মুখোমুখি সংঘর্ষে ঠিকাদারসহ নিহত ২ আহত ৫

চাঁদপুর সদর উপজেলার চান্দ্রা বাজার এলাকায় বালুবাহী পিকআপ-সিএনজি চালিত অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষে ঘটনাস্থলে নূর মোহাম্মদ বেপারী (৭৫) নামে এক ঠিকাদার নিহত হয়েছেন। একই ঘটনায় অটোরিকশা চালকসহ আরো ৪ যাত্রী গুরুতর আহত হয়েছেন। চালক সিরাজ ছৈয়াল (২৫)কে ঢাকায় রেফার করার পর সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বিকেল সাড়ে ৫টায় তার মৃত্যু হয়েছে। সিরাজ আলগী ইউনিয়নের কমলাপুর গ্রামের বাসিন্দা।

ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল ৫ ফেব্রুয়ারি বুধবার দুপুরে হরিণা-চান্দ্রা সড়কের খাসের বাড়ি নামক স্থানে। আহতরা হলেন হাইমচর উপজেলার আলগী দক্ষিণ ইউনিয়নের চরভাঙ্গা গ্রামের নিহত নূর মোহাম্মদের স্ত্রী ফিরোজা বেগম (৬৫), ছেলে আলমগীর হোসেনের স্ত্রী আমেনা বেগম (৩৮), নাতি জাহেদ হাসান (৮) ও একই উপজেলার কমলাপুর গ্রামের সিএনজি অটোরিকশা চালক সিরাজ সৈয়াল (২৫)।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান খানজাহান আলী কালু পাটওয়ারী বলেন, অটোরিকশাটি হাইমচর থেকে ছেড়ে চাঁদপুরের দিকে রওয়ানা হয় এবং বালুবাহী পিকআপ ভ্যানটি হরিণা ঘাট থেকে বালু ভর্তি করে চান্দ্রার দিকে যাচ্ছিলো। ঘটনাস্থলে আসলে পিকআপ ভ্যানের একটি চাকা পাংচার হলে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে অটোরিকশার সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। পরে স্থানীয়রা উদ্ধার করে আহতদের চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপালে নিয়ে আসে।

আহত আমেনা বেগমের মেয়ে ফাতেমা আক্তার জানান, ফুফাতো বোনের বিয়ের অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করতে বাড়ি থেকে সিএনজি অটোরিকশায় লঞ্চঘাটের উদ্দেশ্যে রওনা হয়। পথিমধ্যে বালুবোঝাই পিকআপটি সজোরে ধাক্কা দিলে এ দুর্ঘটনাটি ঘটে। ঘটনাস্থলে দাদা নূর মোহাম্মদ বেপারীর করুণ মৃত্যু হয়। একই সাথে মা, দাদী ও ছোট ভাই আহত হয়।

ঘটনাস্থলে থাকা প্রত্যদর্শীরা জানান, হাইমচর থেকে একই পরিবারের চারজন চাঁদপুর থ-১১-৩৩-২৯ নাম্বারের সিএনজি অটোরিকশায় যাত্রী নিয়ে খাসের বাড়ি এলাকায় আসলে বিপরীত দিক চান্দ্রা বাজারের বাসিন্দা মুক্তারের মালিকানাধীন একটি নাম্বারবিহীন বালু বোঝাই হাইড্রোলিক পিকআপ এসে সজোরে ধাক্কা মারে। পিকআপটির সামনের চাকা বার্স্ট হয়ে সিএনজি অটোরিকশার মুখোমুখি হলে এই দুর্ঘটনাটি ঘটে। ঘটনাস্থলেই একজনের করুণ মৃত্যু হয়। ঢাকা নেয়ার পর অটোরিকশা চালক সিরাজের মৃত্যু হয়েছে।

চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডাঃ আসিবুল আহসান আসিব বলেন, ঘটনাস্থলেই নিহত হন নূর মোহাম্মদ। অপর আহতদের মধ্যে সিএনজি অটোরিকশা চালক সিরাজকে ঢাকায় রেফার করা হলে শেষ বিকেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। বাকিরা চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

Related posts