আকস্মিক না ফেরার দেশে চলে গেলেন মেয়র প্রার্থী শফিকুর রহমান ভূঁইয়া

সর্বস্তরের জনসাধারণের শ্রদ্ধায় শেষ বিদায় জানানো হলো তাঁকে। গতকাল শুক্রবার রাতে পারিবারিক কবরস্থানে শায়িত হলেন চাঁদপুরের জনপ্রিয় রাজনৈতিক নেতা ও সামাজিক ঐক্যের বন্ধনের প্রতীক চাঁদপুর পৌরসভার সাবেক চেয়ারম্যান, বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও আসন্ন চাঁদপুর পৌরসভা নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত ধানের শীষের মেয়র প্রার্থী শফিকুর রহমান ভূঁইয়া।

আকস্মিক অসুস্থতায় শুক্রবার ভোর সাড়ে ৪টার দিকে তিনি পৃথিবীর মায়া ত্যাগ করে চলে যান পরপারে (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৬০ বছর। তিনি স্ত্রী, ২ মেয়ে, জামাতা, ১ ছেলে, ভাই-বোনসহ অগণিত গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

গতকাল বাদ আছর চাঁদপুর হাসান আলী সরকারি হাইস্কুল মাঠে মরহুমের প্রথম জানাজার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। জানাজার নামাজে ইমামতি করেন ইসলামপুর গাছতলার পীর সাহেব খাজা ওয়ালী উল্লাহ। এরপর রহমতপুর কলোনী ও গ্রামের বাড়ি দক্ষিণ গুণরাজদীতে আরো দু’টি জানাজা শেষে পারিবারিক গোরস্থানে দাফন করা হয়।

শফিক ভূঁইয়ার জানাজার নামাজে অংশ নিতে এদিন দুপুরের পর থেকে সর্বস্তরের মানুষের ঢল নেমেছিল শহরে। বিশাল জনস্রোত মিলিত হয় হাসান আলী স্কুল মাঠে। মাঠ পেরিয়ে আশপাশের রাস্তায় মুসলি্লদের তিল ধারনের ঠাঁই ছিল না।

জানাজা পূর্ব আলোচনায় মরহুমের রুহের মাগফিরাত কামনা করে বক্তব্য রাখেন শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দীপু মনি এমপির প্রতিনিধি হিসেবে তাঁর বড় ভাই জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ডাঃ জেআর ওয়াদুদ টিপু, জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপির) জাতীয় নির্বাহী কমিটির পক্ষে সাবেক এমপি শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি, সাবেক মন্ত্রী ও সাবেক এমপি আনম এহছানুল হক মিলন, সাবেক এমপি এসএ সুলতান টিটু, জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি ইঞ্জিঃ মমিনুল হক, জেলা বিএনপির আহ্বায়ক শেখ ফরিদ আহমেদ মানিক, বিএনপি কুমিল্লা বিভাগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোস্তাক মিয়া, চাঁদপুর পৌরসভার মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নাছির উদ্দিন আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক আবু নঈম পাটওয়ারী দুলাল, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব ওচমান গণি পাটওয়ারী, জেলা বিএনপির সাবেক আহ্বায়ক সফিউদ্দিন আহমেদ, সাবেক সাধারণ সম্পাদক আঃ হামিদ মাস্টার প্রমুখ।

মরহুমের পরিবারের পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখেন মরহুম শফিক ভূঁইয়ার জামাতা লেঃ কর্নেল মনোয়ার হাসান। সংক্ষিপ্ত এই আলোচনা পর্ব পরিচালনা করেন জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক অ্যাডঃ সলিম উল্লাহ সেলিম, মুনীর চৌধুরী, দেওয়ান সফিকুজ্জামান ও পৌর বিএনপির সভাপতি আক্তার হোসেন মাঝি।

নেতৃবৃন্দ বলেন, সুন্দর মন নিয়ে রাজনীতি করায় সবার ভালোবাসার লোক ছিলেন শফিকুর রহমান ভূঁইয়া। তিনি ছিলেন বিএনপি ও চাঁদপুরের সামাজিক বন্ধনের ঐক্যের প্রতীক। আমাদের মধ্যে রাজনৈতিক আদর্শের ভিন্নতা থাকতে পারে। কিন্তু সমাজের কাজে আমরা সবাই মিলেমিশে যে রাজনীতি করি শফিক ভঁূইয়ার জানাজায় এতো মানুষের উপস্থিতি তারই প্রমাণ। তাঁর মৃত্যুতে আমরা ব্যথিত এবং মর্মাহত। আমরা তাঁর বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করছি।

বিএনপি নির্বাহী কমিটির সদস্য এমএ হান্নান, মোতাহার হোসেন পাটওয়ারী, চাঁদপুর জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি ও বিএনপির সাবেক নেতা আলহাজ্ব অ্যাডঃ ইকবাল-বিন-বাশার, নাগরিক ঐক্যের কেন্দ্রীয় নেতা অ্যাডঃ ফজলুল হক সরকার, চাঁদপুর পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী অ্যাডঃ জিল্লুর রহমান জুয়েল, ফরিদগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অ্যাডঃ জাহিদুল ইসলাম রোমানসহ আলেম ওলামা, রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ, সুধীজন, পেশাজীবী ও বিভিন্ন দলের নেতা-কর্মীসহ সর্বস্তরের মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

প্রিয় দল বিএনপির দলীয় পতাকায় মোড়ানো শফিক ভূঁঁইয়ার কফিনে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান ও দলের মহাসচিবের পক্ষ থেকে ফুলেল শেষ শ্রদ্ধা জানানো হয়। এরপর শ্রদ্ধা নিবেদন করে জেলা বিএনপি, জেলা আওয়ামী লীগ, চাঁদপুর পৌরসভা ও জেলা পরিষদ। শিক্ষামন্ত্রীর পক্ষেও শ্রদ্ধা জানানো হয়েছে। ফুলে ফুলে ভরে যায় তার কফিন।

অবশেষে অশ্রুসিক্ত শ্রদ্ধা ও ভালোবাসায় তাকে বিদায় জানান চাঁদপুরের সর্বস্তরের মানুষ।

তাঁর মরদেহ গতকাল নতুনবাজারের বাসভবন থেকে আনা হয় জেলা বিএনপি কার্যালয়ে। সেখানে দলীয় নেতা-কর্মীরা তাঁকে শেষবারের মতো কাছে পান। শুক্রবার ফজর নামাজের সময় শফিক ভূঁইয়ার মৃত্যুর খবর শহরে ছড়িয়ে পড়লে সর্বত্র শোকের ছায়া নেমে আসে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আরো জানতে পেরে অনেকেই হতবাক হন। অনেকে শোকে বিহ্বল হয়ে পড়েন।

Related posts