প্রধানমন্ত্রী সারাদেশে ৫৬০টি মসজিদ নির্মাণ কাজ শুরু করেছেন

চাঁদপুরের ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে জাতীয় শিশু দিবস ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে খতমে কুরআন, রচনা প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণ এবং মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। গত ১৭ মার্চ ইফার সম্মেলন কক্ষে এ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন চাঁদপুরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোহাম্মদ আবদুল্লাহ আল মাহমুদ জামান। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু ইসলামিক ফাউন্ডেশন প্রতিষ্ঠা করে গেছেন। তার পাশাপাশি ধর্মীয় নানা বিষয়ে কাজ করেছেন। আজকে বঙ্গবন্ধুর উত্তরসূরি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও বাবার মতো সোনার বাংলাদেশ গড়তে সারাদেশে ৫৬০টি মসজিদ নির্মাণের কাজ শুরু করেছেন। তার পাশাপাশি তিনি সারা বাংলাদেশে এক হাজার দশটি দারুল আরকাম মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠা করেছেন। যার কারণে এ প্রতিষ্ঠানগুলোতে শত শত আলেমের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, বঙ্গবন্ধুর জীবনের অর্ধেক সময় জেলে কাটিয়েছেন। তিনি ইচ্ছে করলে বিলাসবহুল জীবনযাপন করতে পারতেন। কিন্তু দেশকে ভালোবাসার কারণে তিনি অনেক কষ্ট শিকার করতে হয়েছে। আজ সেই কষ্টের বদৌলতে জাতি বঙ্গবন্ধুর কথা স্মরণ করে, তাঁর জন্যে দোয়া করে। আমি মনে করি এটাই আমাদের কাছে তিনি পাওনা।

ইফার উপ-পরিচালক মোহাম্মদ খলিলুর রহমানের সভাপ্রধানে অতিথি ছিলেন জেলা পরিসংখ্যানের উপ-পরিচালক আবু খালিদ মোঃ সাইফুল্লাহ। স্বাগত বক্তব্য রাখেন ইফার ফিল্ড অফিসার মোঃ বিল্লাল হোসেন। ফিল্ড সুপারভাইজার মোঃ শামসুদ্দীনের সঞ্চালনায় কোরআন তেলাওয়াত করেন বিষ্ণুপুর মদিনা জামে মসজিদের খতিব মাওলানা আবু বকর বিন ফারুক, শিশু ও গণশিক্ষা কেন্দ্রের শিক্ষার্থী ইয়াসিন।

অনুষ্ঠানে মিলাদ পরিচালনা করেন গাছতলা দরবার শরীফের পীরজাদা খাজা জুবায়ের। দোয়া ও মোনাজাত পরিচালনা করেন জেলা জাতীয় ইমাম সমিতির সাধারণ সম্পাদক মাওলানা আব্দুস সালাম। উপস্থিত ছিলেন জেলা ইমাম-মুয়াজ্জিন কল্যাণ সমিতির সাধারণ সম্পাদক মাওলানা মোঃ আবদুর রহমান গাজী, হিসাবরক্ষক মোঃ আব্দুল হালিম, মাস্টার ট্রেইনার মোহাম্মদ সোলায়মানসহ মসজিদভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা, কুরআন শিক্ষা কেন্দ্রের শিক্ষকগণ। মসজিদভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কেন্দ্রের শিক্ষার্থীদের মাঝে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীতে আয়োজিত রচনা প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়া বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন প্রধান অতিথি।

Related posts