করোনায় ইউপি চেয়ারম্যানের প্রশংসনীয় উদ্যোগ

করোনা মোকাবেলায় শাহরাস্তি উপজেলার টামটা উত্তর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ফারুক দর্জি ইউনিয়নবাসীর জন্যে ব্যতিক্রমধর্মী উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন। তার নিজ উদ্যোগে করোনা প্রতিরোধে ইউনিয়নবাসীর মধ্যে গণসচেতনতা বৃদ্ধি করতে ব্যাপক উদ্যোগ হাতে নেন। ইতিমধ্যে ইউনিয়ন বাসী তার এই প্রশংসনীয় উদ্যোগের সুফল পেতে শুরু করেছেন। সরকারের ঘোষণা অনুযায়ী সমাজিক দূরত্ব বাজায় রাখতে ও পরিবেশ দূষণমুক্ত রাখতে প্রতিটি এলাকায় সুন্দর নেটওয়ার্ক গড়ে তোলেন ফারুক দর্জি। ইউনিয়ন ঘুরে তার এই কর্মসূচি চোখে পড়ে। এই ইউনিয়নের ১৫টি প্রবেশ মুখ দিয়ে প্রতিদিন শত শত মানুষ ইউনিয়নে প্রবেশ করে। তাই প্রতিটি প্রবেশ মুখে একটি করে স্প্রে মিশিনের মাধ্যমে কোন যানবাহন ও ব্যক্তি প্রবেশ করলে তাকে জীবানুনাশক স্প্রে করে ইউনিয়নে প্রবেশ করতে দেয়া হয়। এছাড়া প্রত্যেক ইউপি সদস্যকে নিজ উদ্যোগে একটি করে স্প্রে মিশিন কেনার জন্য বলা হলে তারা প্রত্যেকে একটি করে স্প্রে মেশিন ক্রয় করেন। এর মাধ্যমে প্রতিটি ওয়ার্ডে প্রতিদিন স্প্রে করা হয়ে থাকে। ইউনিয়নের জনসাধারণ যাতে কোনো কিছুর অজুহাতে ঘর থেকে বের হয়ে সামাজিক দূরত্ব ভঙ্গ না করেন সেজন্যে নেয়া হয়েছে বিশেষ ব্যবস্থা।

চেয়ারম্যান ফারুক দর্জির নির্দেশনায় ইউনিয়নটিকে ৩৬ ভাগে ভাগ করা হয়েছে। প্রত্যেকটি ভাগে ৬ জন করে স্বেচ্ছাসেবক দিয়ে জনগণের সমস্যা সমাধানে কাজ করা হচ্ছে। স্বেচ্ছাসেবকগণ সকাল থেকে দুপুর ও দুপুর থেকে রাত পর্যন্ত দুই ভাগে বিভক্ত হয়ে জনগণের সেবায় কাজ করবেন। এ সকল স্বেচ্ছাসেবকগণ প্রতিটি বাড়িতে গিয়ে জনসাধারণের খোঁজ-খবর নিবেন ও নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী ক্রয় করে দিবেন। এজন্য জনগণকে বাড়ির বাহির হতে হবে না। এছাড়াও বাজারে জনসমাগম কমাতে চেয়ারম্যানের উদ্যেগে ভ্রাম্যমাণ ন্যায্যমূল্যের দোকান খোলা হয়েছে গত ৩০ মার্চ থেকে। এই দোকানের মাধ্যামে বাড়ি বাড়ি নিত্য সামগ্রী পৌঁছে দেয়া হচ্ছে। পুরো ইউনিয়নটিকে একটি নেটওয়ার্কের আওতায় আনা হয়েছে। ইউনিয়ন অফিসে একটি কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে, সেখান থেকে ইউনিয়নটি মনিটরিং করা হচ্ছে। ইউনিয়ন কন্ট্রোল রুমের নাম্বার উপজেলায় দেয়া হয়েছে, যাতে যে কোনো সংবাদ অতি দ্রুত উপজেলায় পৌঁছে দেয়া যেতে পারে।

স্থানীয়ভাবে জানা যায়, জনগণের মাঝে সচেতনতা বৃদ্ধি করতে চেয়ারম্যান ফারুক দর্জি নিজেই ইউনিয়ন জুড়ে মাইকিং করেছেন। জনগণ যাতে উদ্বুদ্ধ হয় সে লক্ষ্যে তিনি মাইক হাতে এলাকায় নেমে পড়েন। তার এই মহতী উদ্যোগকে জনগণ স্বাগত জানিয়েছেন। এই আপদকালীন সময়ে সাহসের সাথে জনগণের পাশে থাকা ও সেবা দিয়ে যাওয়ায় জনগণ তাকে স্বাগত জানিয়েছেন।

এ ব্যাপারে ফারুক দর্জি জানান, জনগণের জন্য জনপ্রতিনিধি হয়েছি। আর জনগণের বিপদে কাছে থাকবো না তা কী করে সম্ভব। আমি সরকারের আদেশ মেনে কাজ করছি। আমাদের সংসদ সদস্য মহোদেয়ের অনুপ্রেরণায় ও নির্দেশে জনগণের পাশে থাকছি। আমি চাই আমার এলাকার সকল জনগণ নিরাপদে থাকুক ও সুস্থ থাকুক।

Related posts