কারেন্ট জালসহ নৌকায় জাটকা ও ইলিশ নিধন

করোনা পরিস্থিতির মধ্যেও চাঁদপুর শহর এলাকার বিভিন্ন স্থান দিয়ে জাটকা ও ইলিশ নিধন, ক্রয়-বিক্রয় চলছে বলে জানিয়েছেন প্রত্যক্ষদর্শী। হরিসভা শহর রক্ষা বাঁধ এলাকা ও রণাগোয়াল খালের কমপক্ষে ৫০টি কারেন্টজালের নৌকা আইন অমান্য করে নদীতে যাচ্ছে এবং মাছ ধরছে। জেলা সদরে কীভাবে স্থানীয় যুবলীগ নেতা শাহাদত পাটওয়ারী, রফিক শেখ, বিএনপি নেতা শাহজাহান গাজী ও লিটন গাজীর আড়তের জেলে নৌকা গত ৩০ দিনই নদীতে গিয়ে নিষেধাজ্ঞার মধ্য জাটকা এবং ইলিশসহ অন্য মাছ ধরছে-এ নিয়ে মানুষের মধ্যে চলছে নানা আলোচনা-সমালোচনা। প্রশাসনতো কাছেই আছে। তা হলে কোন্ খুঁটির জোরে এরা জাটকার সময় জাটকা আর মা ইলিশের সময় মা ইলিশ নিধন কাজ করে অবৈধভাবে লাখ লাখ টাকা কামাই করছে-জনমনে এমন প্রশ্ন থাকলেও প্রশাসন তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পারছে না। এলাকার সচেতন মহল কিছু বলতে সাহস পাচ্ছে না। এরা সন্ত্রাসী কায়দায় বহু বছর যাবত জাতীয় মৎস্য সম্পদ ইলিশ ধংসের কাজ করে আসছে বলে স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে।

গতকাল মঙ্গলবার বিকালে গাড়ি নিয়ে গিয়ে প্রশাসন রণাগোয়াল এলাকায় অভিযান চালায়। পরে নৌকা ঘাটে ফেলে রেখে জেলে নামধারী দস্যুরা এবং মাছ বিক্রির আড়তদাররা দৌড়ে পালিয়ে যায়।

হরিসভা ও রণাগোয়াল ঘাটের জেলে নৌকাগুলো নিয়ন্ত্রণ করা গেলে এবং চিহ্নিত কয়েক ব্যক্তির বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হলে এখানকার অবৈধ মাছ ধরা ও ক্রয়-বিক্রয় বন্ধ হবে বলে মনে করেন সচেতন মহল। এ ব্যাপারে জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার ও রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের হস্তক্ষেপ প্রয়োজন।

Related posts