ঢাকা, শনিবার, ৩১শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১৬ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

ঈদের আগে নতুন ঘর পেয়ে ওদের মুখে হাসি।

নিজের সহায় সম্পদ কিছুই নেই। পরিবারের সদস্যদের নিয়ে একপ্রকার ভাসমান জীবন। এমন দুটি পরিবার পেলেন স্থায়ীভাবে পাকা বসতঘর। নতুন ঘর পেয়ে তাঁদের মুখে হাসি ফুটেছে। চাঁদপুর জেলা প্রশাসন ক্যাডারের কর্মকর্তাদের বেতনের টাকায় টিনশেড পাকা ঘর নির্মাণ করে দেওয়া হয়েছে অসহায় পরিবার দুটিকে।

রবিবার (৯ মে) বিকেলে সদর উপজেলার বাগাদী ইউনিয়নের পশ্চিম সকদি গ্রামে ঘর দুটির দরজার চাবি অসহায় ওই দুটি পরিবারের কাছে হস্তান্তর করেন জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ। এসময় পরিবার দুটিকে এক সপ্তাহের খাদ্যসামগ্রীও দেওয়া হয়।

অ্যাডমিনিস্ট্রেশন সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশন, চাঁদপুর শাখার আর্থিক সহায়তায় যারা পাকা বসতঘর পেলেন তারা হচ্ছেন পশ্চিম সকদি গ্রামের অটোচালক আব্দুল কাদির ও তার স্ত্রী মারুফা বেগম দম্পতি এবং ডাব বিক্রেতা হাসান মিয়া ও তার স্ত্রী নাজমা বেগম দম্পতি। সরকারি খাস জমিতে এই দুটি ঘর নির্মাণ করতে ব্যয় হয়েছে ৪ লাখ ৩৪ হাজার টাকা।

বৈরী আবহাওয়ার মধ্যে অনুষ্ঠিত এই মহৎ আয়োজনে জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ বলেন, দেশের কোনো মানুষই গৃহহীন থাকবে না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এমন ঘোষণা বাস্তবায়ন করতে সবাইকে সহযোগিতা নিয়ে এগিয়ে আসতে হবে। সেই লক্ষ্যে চাঁদপুর জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে কর্মরত প্রশাসনের কর্মকর্তাদের বেতনের টাকায় এই দুটি পাকা বসতঘর নির্মাণ করে দেওয়া হয়েছে। প্রয়োজন হলে ভবিষ্যতেও এমন উদ্যোগ নেওয়া হবে।

বসতঘরের চাবি হস্তান্তর অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় সরকার বিভাগের উপপরিচালক, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ জামান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) দাউদ হোসেন, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সানজিদা শাহনাজ, চাঁদপুর প্রেস ক্লাবের সভাপতি ইকবাল হোসেন পাটোয়ারীসহ চাঁদপুর অ্যাডমিনিস্ট্রেশন সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের অন্যান্য সদস্য।

এদিকে, যে দুটি গৃহহীন পরিবার নতুন করে আশ্রয় পেলেন, তারা উদ্যোক্তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন।

সর্বশেষ - Social Linkচাঁদপুরচাঁদপুর সদরপ্রথমপাতা

জনপ্রিয় - Social Linkচাঁদপুরচাঁদপুর সদরপ্রথমপাতা