ঢাকা, মঙ্গলবার, ২২শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৮ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

ঘরোয়া ৩টি উপাদানেই দূর হবে মুখের মেছতার দাগ

মেছতার ঘরোয়া চিকিৎসায় ব্যাহৃত উপাদান।

মুখের মেছতার দাগ নিয়ে অনেকেই উদ্বিগ্ন থাকেন। কারণ এটি সারানোর জন্য কার্যকরী কোনো উপায়ের সন্ধান জানেন না অনেকেই। আর তাইতো বিভিন্নজনের পরামর্শে একের পর এক কেমিকেলযুক্ত প্রসাধনী ব্যবহারের ফলে মেছতার দাগ আরও গাঢ় হয় ত্বকে। মেছদার দাগ মুখের সব সৌন্দর্যই যেন নষ্ট করে দেয়।

মেছতার প্রকারভেদও আছে- ত্বকের লেয়ার অনুযায়ী মেছতা দুই ধরনের হতে পারে। ত্বকের ওপরের লেয়ারে যদি হয়ে থাকে; তাহলে এটি এপিডার্মাল মেলাজমা। আর ডার্মাল লেয়ারে যদি হয়ে থাকে, তাহলে একে ডার্মাল মেলাজমা বলা হয়। মেলার এরিয়াতে হলে মেলার মেলাজমা বলা হয়। এ ছাড়াও সূর্যের আলো পড়ে এ রকম যেকোনো স্থানে মেছতা হতে পারে।

মেছতা একবার হলে তা একেবারে দূর করা সম্ভব নয়। তাই বাজারের বিভিন্ন ধরনের কেমিকেলযুক্ত প্রসাধনীতে ভরসা না রেখে বরং ঘরোয়া উপায় অবলম্বন করুন। ঘরোয়া উপায়ে প্রাকৃতিক বিভিন্ন ভেষজ রূপচর্চা ব্যবহারের ফলে ত্বকের কোনো পার্শ্ব-প্রতিক্রিয়া হয় না। আর নিয়মিত ব্যবহারের ফলে এসময় মেছতার মতো দাগও সেরে যায়। জেনে নিন রান্নাঘরের তেমনই ৩ উপাদান সম্পর্কে-

হলুদঃ সবার রান্নাঘরেই হলুদ থাকে। রান্নায় ব্যবহারের পাশাপাশি রূপচর্চা এমনকি শারীরিক বিভিন্ন সমাধান আছে হলুদে। হলুদে থাকা কার্কিউমিন ত্বকের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ-বলে বৈজ্ঞানিকভাবে প্রমাণিত। কার্কিউমিনে ইউভি প্রতিরক্ষামূলক গুণাবলী আছে- একটি হলো, অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট এবং অন্যটি অ্যান্টি-মুটাগেন। এ দুটি উপাদানই প্রদাহ কমায়।

এক সমীক্ষায় দেখা গেছে, কার্কুমিন টাইরোসিনেজ এবং মেলানিন উত্পাদন বাঁধা দেয়। এরা উভয়ই মেছতার দাগের জন্য দায়ী। অন্য আরেকটি সমীক্ষায় দেখা গেছে, কার্কুমিনে থাকা অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট বৈশিষ্ট্যগুলো গভীর কালো দাগ দূর করতে সক্ষম।

অ্যালোভেরা জেলঃ ত্বক-চুল এমনকি স্বাস্থ্রের জন্যও অত্যন্ত উপকারী এক উপাদান হলো অ্যালোভেরা। এটি কেবল ত্বকের রোদে পোড়া দাগ দূর করে না বরং মেছতার দাগও ভ্যানিশ করতে পারে। এক সমীক্ষায় দেখা গেছে, গর্ভবতী নারীদের মুখে পড়া প্রাথমিক মেছতার দাগ কমাতে বিশেষভাবে অবদান রেখেছে অ্যালোভেরা।

লেবুর রসঃ লেবুর রসে প্রাকৃতিক ব্লিচিং এজেন্ট আছে, এটি সবারিই জানা। ত্বকের যেকোনো কালচে দাগ হালকা করে দিতে পারে লেবু। তবে সরাসরি মুখে লেবুর রস ব্যবহার করবেন না। এর সঙ্গে যেকোনো ফেসমাস্ক ব্যবহার করতে পারেন। এ ছাড়াও হলুদের গুঁড়োর সঙ্গে লেবুর রস ও মধু মিশিয়েও ব্যবহার করলে ভালো ফলাফল পাবেন।

সর্বশেষ - Lifestyleপাঠকলাইফস্টাইলস্বাস্থ্য

জনপ্রিয় - Lifestyleপাঠকলাইফস্টাইলস্বাস্থ্য