ঢাকা, শনিবার, ৪ঠা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

হানারচরে নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা, শহিদ সরদারের নেতৃত্বে মা ইলিশ ধরার হিড়িক

বিশেষ প্রতিনিধিঃ চাঁদপুর সদর উপজেলার ১৩ নং হানারচর ইউনিয়নে ৭ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও মেম্বার পদপ্রার্থী মোঃ শহিদ সরদারের নেতৃত্বে আখনের হাট বাজারে মা ইলিশ নিধনের হিড়িক চলছে। প্রকাশ্যেই হচ্ছে ইলিশের ক্রয় বিক্রয়।

চাঁদপুরে নদীতে মাছ ধরার ওপর নিষেধাজ্ঞা মানছেন না জেলেরা। দিনে ও রাতে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের চোখ ফাঁকি দিয়ে প্রকাশ্যেই নির্বিচারে নিধন করছে মা ইলিশ।

জানা যায়, হানারচর ইউনিয়নের মোঃ শহিদ সরদারের নেতৃত্বে চলছে মা ইলিশ নিধনের মহোৎসব। অবৈধভাবে ধরা এই মা ইলিশ শহিদ সরদারের আখনের হাট মৎস্য আড়ৎ দিয়ে অবৈধ ভাবে বিক্রি হচ্ছে।

উল্লেখ্য, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ শহিদ সরদার আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে মেম্বার পদপ্রার্থী।

ইউনিয়নের আখনের হাট এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, মা ইলিশ শিকারে দলবদ্ধভাবে নৌকা নিয়ে নদীতে নেমেছে জেলেরা। নৌকার বহর দেখে যে কারোরই মনে হতে পারে নদীতে মাছ ধরার প্রতিযোগিতায় মেতে উঠেছে তারা। নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে মা ইলিশ নিধনে মেতেছে জেলেরা।

এ ব্যাপারে সদর উপজেলার হরিণা ফেরিঘাট এলাকার স্থানীয় এক জেলের সাথে কথা হয় এই প্রতিবেদকের।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এই জেলে বলেন, ‘সরকার নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে ২২ দিন। আমরা নিষেধাজ্ঞা মান্য করে নদীতে নামি না মাছ ধরতে। কিন্তু অনেক জেলেই নদীতে নেমে মা ইলিশ নিধন করছেন ।এভাবে মা ইলিশ ধরা হলে আগামী মৌসুমে ইলিশ পাওয়া যাবে না। এতে করে আমরা যারা প্রকৃত জেলে রয়েছি তাদের কষ্টের সীমা থাকবে না।’

মৎস্য কর্মকর্তারা বলছেন, ‘কিছু অসাধু জেলে মা ইলিশ কম দরে আখনের হাট শহিদ সরদারের আড়তে বিক্রি করে আসছে শহিদ সরদারের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার জোর দাবি জানান স্হানীয় এলাকার জেলে প্রতিনিধিরা। বিশেষ করে চাঁদপুরের হরিনা, মোহনপুর ও পাশের মুন্সীগঞ্জসহ বিভিন্ন স্থান থেকে জেলেরা সংঘবদ্ধ হয়ে নিষিদ্ধ কারেন্ট জাল নিয়ে মা ইলিশ শিকারে নদীতে নামছে। জাল ভর্তি হয়ে উঠে আসছে মা ইলিশ মাছ।’

নিষেধাজ্ঞার সময়ে জাটকাসহ সব ধরনের মাছ আহরণ, বেচা-কেনা, মজুদ ও পরিবহন নিষিদ্ধ। আইন অমান্যকারী ব্যক্তিকে মৎস্য আইনে ২ বছরের কারাদণ্ড, পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা ও উভয় দণ্ড দেয়ার বিধান রয়েছে।

এ ব্যাপারে জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ বলেন, চাঁদপুরের মা ইলিশ রক্ষায় আমরা সবসময় কাজ করে যাচ্ছি। ২৪ ঘণ্টা নদীতে টহল দেয়া হচ্ছে। মা ইলিশ রক্ষায় আমরা অত্যন্ত কঠোর অবস্থানে রয়েছি। এর সঙ্গে জড়িত কাউকে ছাড় দেয়া হবে না।

সর্বশেষ - ইলিশচাঁদপুর

জনপ্রিয় - ইলিশচাঁদপুর