ঢাকা, শনিবার, ৪ঠা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

ক্যান্সার চিকিৎসায় প্রযুক্তি ব্যাবহারে একধাপ এগিয়ে গেল দেশ

স্বাস্থ্য ডেস্ক: দেশে প্রথমবারের মত প্রাণঘাতী ক্যান্সার গবেষণা ও পরীক্ষা-নিরীক্ষায় সাইক্লোট্রন সুবিধাদিসহ সর্বাধুনিক পেট-সিটি (পজিট্রন ইমিশন টোমোগ্রাফি) প্রযুক্তি স্থাপিত হয়েছে, যা দেশের ক্যান্সার চিকিৎসাকে আরও একধাপ এগিয়ে দিয়েছে। পেট স্ক্যান এমন এক প্রযুক্তি যাতে দুটি অত্যাধুনিক প্রযুক্তির সমন্বয়ে গঠিত স্ক্যানারে একটি ফিউশন ইমেজ একই সময়ে পাওয়া যায়।

বাংলাদেশ পরমাণু শক্তি কমিশনের অধীনস্ত ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউক্লিয়ার মেডিসিন অ্যান্ড অ্যালায়েড সায়েন্সেসের (নিনমাস) আওতায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) ২টি পেট-সিটি মেশিন, রেডিও কেমিস্ট্রি সুবিধাসহ ১টি সাইক্লোট্রন মেশিন এবং ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আরও ১টি পেট-সিটি মেশিন স্থাপন করা হয়।

বিএসএমএমইউতে ২টি পেট-সিটি মেশিন এবং রেডিওকেমিস্ট্রিসহ ১টি সাইক্লোট্রন মেশিন স্থাপন ও ঢামেকে ১টি পেট- সিটি মেশিন স্থাপন করা হয়েছে। এই প্রযুক্তি দ্রুত ক্যান্সার শনাক্তে দেশের ক্যান্সার চিকিৎসায় যুগান্তকারী অবদান রেখে চলেছে।

শরীরে যে সব স্থানের কোষগুলো বেশি সক্রিয় থাকে পেট স্ক্যান কেবল সেইসব স্থানের চিত্র/তথ্য প্রদান করে থাকে; অপরদিকে সিটি স্ক্যান কোন স্থানের গঠনগত এবং অবস্থানগত তথ্য/চিত্র সূক্ষ্মভাবে প্রদান করে। পেট-সিটিতে এই দুই প্রযুক্তির ফিউশন একসাথে আউটপুট পাওয়া যায়। এই দুটো ইমেজের সমন্বিত ইমেজটি একজন অভিজ্ঞ চিকিৎসককে শরীরের যেসব স্থানের কোষগুলো বেশি সক্রিয় অর্থাৎ ক্যান্সার আক্রান্ত কোষগুলো খুঁজে বের করতে সাহায্য করে।

এ পরীক্ষার মাধ্যমে পাওয়া তথ্য/চিত্র চিকিৎসককে কোন বেদনাদায়ক পরীক্ষা এবং সার্জারি ছাড়াই রোগ নির্ণয় করে দ্রুত চিকিৎসা শুরু করতে সাহায্য করে। একটি নির্দিষ্ট রোগের চিকিৎসার ফলাফল পর্যবেক্ষণ করতেও এই পরীক্ষাটি করা হয়।

সর্বশেষ - প্রথমপাতাস্বাস্থ্য

জনপ্রিয় - প্রথমপাতাস্বাস্থ্য