আলু, টমেটো, সরিষা, করলাসহ অন্য সকল শীতকালীন ফসল নষ্ট হওয়ার পথে

গত প্রায় দুই পক্ষকাল ধরে কয়েকটি শৈত্যপ্রবাহ আর ২/১ দিন পরপর ঘন কুয়াশার কারণে শীতকালীন ফসল অনেকটা নষ্ট হওয়ার উপক্রম হয়েছে। বার বার ফসল নষ্ট হবার কারণে কৃষকের স্বপ্নে ঘুণ ধরেছে। ইতিমধ্যে আলু, টমেটো, সরিষা, করলাসহ শীতকালীন সবজি অনেকখানি নষ্ট হয়ে গেছে। তবে উপজেলা কৃষি অফিস বলছে, এই মুহূর্তে ছত্রাক নাশক ছিটানো আর নষ্ট হয়ে যাওয়া আলুর জমিতে বিকল্প ফসল হিসেবে ভুট্টা চাষ করলে হয়তো কৃষকের ক্ষতি যৎসামান্য কাটিয়ে ওঠা সম্ভব। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্র জানায়, গত কয়েক বছরের চেয়ে চলিত বছর আলুসহ অন্য সকল শীতকালীন সবজি চাষে অনেকটাই…

বিঘাপ্রতি পেঁয়াজের ফলন ২০০ মণ, তবুও লোকসান

যেখানে দেশি জাতের পেঁয়াজের ফলন বিঘাপ্রতি ৫০ থেকে ৬০ মণ হয়, সেখানে ভারতীয় জাত সুখসাগর পেঁয়াজের ফলন হয় ১৫০ থেকে ২০০ মণ। তারপরও সুখসাগর পেঁয়াজ চাষ থেকে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছেন মেহেরপুরের কৃষকরা। সংরক্ষণাগার না থাকা আর ভরা মৌসুমে দেশের বাইরে থেকে পেঁয়াজ আমাদানি হওয়ায় প্রতি বছরই লোকসানের মুখে পড়ছেন কৃষকরা। মেহেরপুরের মুজিবনগর উপজেলার শিবপুর গ্রামের কৃষক আলমগীর হোসেন। তিনি জমিতে পেঁয়াজ পরিচর্যায় ব্যস্ত সময় পার করছেন। তবে তার চোখে-মুখে হতাশার ছাপ। কারণ গেল বছরে ১০ বিঘা জমিতে ভারতীয় সুখসাগর জাতের পেঁয়াজ চাষ করে বড় ধরনের লোকসানের মুখে পড়েছেন তিনি। advertisement…